ঢাকা, আজ বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১

চৌদ্দগ্রামে প্রবাসীর স্ত্রী কে হত্যার অভিযোগ

প্রকাশ: ২০২১-০৪-০৫ ০৯:১৩:৪৭ || আপডেট: ২০২১-০৪-০৫ ০৯:১৩:৪৭

চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধি:
কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে মর্জিনা আক্তার সাকি(৩২) নামে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। গৃহবধুর শশুর-শাশুরীর দাবি সাকি গলায় ওড়না পেছিয়ে আত্নহত্যা করেছে। আর সাকির মা হাসিনা আক্তারের দাবি তাকে যৌতুকের জন্য শশুর বাড়ীর লোকজন হত্যা শেষে লাশ ঝুলিয়ে রেখে আত্নহত্যার প্রচার করছে। পুলিশ বলছে ময়না তদন্তের রিপোট আসলে মৃত্যূর আসল কারন জানা যাবে। আর সাকিকে হত্যার অভিযোগে তার মা হাসিনা আক্তার শশুর মোঃ আবুল কালাম ভুঁইয়া, শাশুড়ী ছামেনা বেগম, প্রবাসী স্বামী আল-মামুন ভুঁইয়া ও ঝা সালমা বেগমকে আসামী করে শুক্রবার রাতে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার বিকেলে উপজেলার চিওড়া ইউনিয়নের কাপড়চতলী গ্রামে।

থানায় দায়েরকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ৪ মার্চ উপজেলার কাপড়চতলী গ্রামের আবুল কালামের সৌদি প্রবাসী ছেলে আল-মামুন ভুইয়া (৪০) এর সাথে সদর দক্ষিন থানার কৃষ্ণপুর মোক্তার বাড়ী মৃত জুনাব আলীর মেয়ে মর্জিনা আক্তার শাখি (৩২) এর সাথে মুঠোফোনে বিয়ে হয়। তারপর থেকে সাকির স্বামী সৌদি আরবে বসবাস করে আসছে। বিয়ের পর থেকে শশুর ও শাশুড়ী স্বামী আল-মামুনের সহযোগিতায় ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবী করে আসছে। বিষয়টি সাকি তার মাকে অবগত করলে তিনি যৌতুক দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন। পরবর্তীতে স্বামীর প্ররোচনায় শশুর-শাশুড়ীসহ সাকির উপরে শারিরীক ও মানুষিক নির্যাতন করতে থাকে। নির্যাতনের বিষয়টি সাকি তার মাকে পুনরায় অবগত করলে তাঁর মা ঝা সালমা বেগমকে বিষয়টি জানায়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তাঁকে হুমকি দিয়ে বলে যদি যৌতুক দিতে না পারলে সাকির সমস্যা হইবে এবং তারপর থেকে সাকির উপরে শারিরীক ও মানুষিক নির্যাতন আরো বাড়িয়ে দেয়। গত ৩ এপ্রিল বিষয়টি আত্নীয় স্বজনকে জানিয়ে পূনরায় সাকির মোবাইল নাম্বারে ফোন দিলে ফোন বন্ধ পাওয়া যায় এবং ওই দিন বিকেলে তার শাশুরী সাকির বোন তানজিনাকে ফোন করে জানায় সাকি মারা গেছে। হাসিনা আক্তার অভিযোগ করে বলেন, শশুর বাড়ীর লোকজন সাকিকে গলায় ওড়না ও গামছা পেছিয়ে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রাখে।