ঢাকা, আজ সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১

আলকরায় ১০ টাকা কেজির চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ

প্রকাশ: ২০২১-০৩-১৭ ১২:৩১:৩৬ || আপডেট: ২০২১-০৩-১৭ ১২:৩৩:৪৩

চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার আলকরা ইউনিয়নের ৬, ৭ ও ৮ নং ওয়ার্ডে ১০ টাকা কেজি চাল বিরতণে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ট্যাগ অফিসারকে না জানিয়ে গোপনে চাল উত্তোলণ ও বিতরণ করেছে ডিলার। ইউনিয়নের পদুয়া বাজারের খন্দকার এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী কে এম মোফাজ্জল মাসুদের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, খন্দকার এন্টারপ্রাইজ এর স্বত্বাধিকারী ছাত্রলীগ নেতা কে এম মোফাজ্জল প্রকাশ মাসুদ ইউনিয়নের ৬, ৭ ও ৮ নং ওয়ার্ডে ১০ টাকা কেজি চাল বিতরণের ডিলার নিয়োগ পায়। নিয়োগ পেয়ে ৩টি ওয়ার্ডের ৩৭৩ জন উপকারভোগীর মাঝে ১০ টাকা কেজিতে চাল বিতরণের দায়িত্ব পায়। স্থানীয় ৩টি ওয়ার্ডের সদস্যরা নিজ নিজ এলাকার অসহায়দের তালিকা তৈরী করে চাল বিতরণের জন্য পাঠায়। প্রথম ধাপে গত ১১ মার্চ সকালে ট্যাগ অফিসারের উপস্থিতিতে ৯৯ জন ও বিকেলে আরও ৬৯ জনের মাঝে ১০ টাকা কেজি ধরে চাল বিতরণ করেন।

২য় ধাপে ১৬ মার্চ চাল বিতরণের দিন ছিল। সে অনুযায়ী ডিলার মাসুদ উপজেলা খাদ্য গুদাম থেকে ২৩৫ জনের জন্য ৭ হাজার ৫০ কেজি চাল উত্তোলন করেন। নিয়ম অনুযায়ী উপজেলা খাদ্য গুদাম থেকে চাল উত্তোলনকালে ট্যাগ অফিসার উপস্থিত থেকে চাল নিতে হয়। কিন্ত ডিলার মাসুদ ট্যাগ অফিসারকে না জানিয়ে নিজের ইচ্ছে মতো চাল উত্তোলন করে নিয়ে আসে।

মঙ্গলবার বেলা ১২টায় ডিলারের গুদামে গিয়ে দেখা যায়, ‘মাত্র ১০ বস্তা চাল অবশিষ্ট আছে। চাল বিতরণের বিষয়ে ট্যাগ অফিসারকে অবগত না করে ডিলার নিজের ইচ্ছে মতো চাল বিতরণ করছে। চাল গ্রহীতাদের তালিকা থাকলেও তাতে নেই কোন স্বাক্ষর বা টিপসই।

মাত্র দুই ঘন্টায় ২’শত লোকের মাঝে কিভাবে চাল বিতরণ করা হলো এক নিয়ে স্থানীয়রা কৌতুহল প্রকাশ করেন।

এ বিষয়ে নিয়োগপ্রাপ্ত ট্যাগ অফিসার উপ-সহকারী কৃষি মোঃ মিজানুর রহমান জানান, ‘পূর্বের চাল বিতরণে উপস্থিত ছিলাম। মঙ্গলবার চাল উত্তোলন বা বিতরণে তাঁকে অবহিত করা হয়নি। তিনি অন্য কাজে ওই এলাকায় গিয়ে চাল বিতরণের কার্যক্রম দেখতে পান’।

এদিকে ডিলার কে এম মোফাজ্জল প্রকাশ মাসুদ জানান, ‘স্থানীয় ইউপি সদস্যদের উপস্থিতিতে স্বচ্ছভাবে চাল বিতরণ করেছি। ট্যাগ অফিসারকে একাধিকবার ফোন করেও না পাওয়ায় নিজেই চাল উত্তোলন শেষে বিতরণ করেছি’।

চৌদ্দগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ রানা বলেন, ‘অনিয়মের অভিযোগের খবর পাওয়ার পর তদন্ত টিম গঠন করে পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে ডিলারশীপ বাতিলসহ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে’।