ঢাকা, আজ সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

প্রকাশ: ২০২১-০৩-০৫ ১২:০০:৫৮ || আপডেট: ২০২১-০৩-০৫ ১২:০০:৫৮

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

গত ২ মার্চ একটি অনলাইন নিউজ পোর্টালে ‘ কুমিল্লার দেবিদ্বারে ব্যবসায়ীর উপর সন্ত্রাসী হামলা’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ করেছেন দেবিদ্বার উপজেলাধীন ৬নং ফতেহাবাদ ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান খন্দকার আব্দুস সালামের ছেলে ফখরুল ইসলাম।

এক প্রতিবাদ লিপিতে তিনি বলেছেন, আমাকে জড়িয়ে যে খবর প্রকাশিত হয়েছে তা সম্পূর্ণ ভুয়া, বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। আমি এই নিউজের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছি। প্রকৃত ঘটনা হচ্ছে, যে আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সাইচাপাড়া গ্রামে আমার আপন চাচা-চাচি মিথ্যে সাজানো নাটক করে আমাকে ফাসানোর চেষ্টায় মিথ্যা মামলা করেছেন।

গত ২৮ ফ্রেব্রুয়ারি দেবিদ্বারে উপজেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ভোট কেন্দ্রে অনিয়মের কারণে আমার চাচা গোলাম মোস্তফা পুলিশের হাতে উত্তম-মাধ্যম খেয়ে পায়ে আঘাত প্রাপ্ত হয়। যার ফলে তাকে কিছুটা খুঁড়িয়ে হাটা-চলা করতে দেখেছেন এলাকাবাসী।

তবে আমার চাচা মামলার এজহার এবং প্রকাশিত সংবাদ এ বক্তব্য দিয়েছেন, সোমবার গভীর রাতে তিনি তার নিজস্ব ইটভাটা থেকে ফেরার পথে আমার (ফখরুল) নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী তার (মোস্তফা) উপর হামলা চালাই। তার চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে। এ সময় নগদ আশি হাজার টাকাও ছিনিয়ে নিয়েছি বলে উল্লেখ করেন।

ঘটনার আসল সত্য এই যে, ঘটনার দিন রাত ৮টা থেকে প্রায় ১১টা পর্যন্ত সাইচাপাড়া বাজারে অবস্থিত শখের ঘর রেস্টুরেন্টে এলাকার লোকজনদের সাথে নিয়ে নির্বাচন পরবর্তী আলাপ-আলোচনা করছিলাম। এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন, সাইচাপাড়া গ্রামের আমির হোসেন, বাশার মোল্লা, আব্দুল আলিম, জসিম উদ্দিন, মোঃ আইয়ুব, মোঃ কাউছার, জালাল, মনির, রুবেল, এমরান, ষ্টুডিও মালিক কাউছার, আরিফ, আল-আমিন, ফয়সাল, মোঃ হুসু মিয়া, হেলাল আহাম্মেদ, রেস্টুরেন্ট বাবুর্চি আলামিন, ১৩বছরে এক ছেলে নূর নবী, রেস্টুরেন্ট বয় ৭জন, দেবিদ্বার পুরাতন বাজার এর সম্রাট হাসান অন্তর সহ আরো অন্তত ৩০ জন সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

স্বাক্ষীদের মধ্যে উল্লেখ যোগ্য কয়েকজন জানান, উক্ত সংবাদে ৬নং ফতেহাবাদ ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান খন্দকার আব্দুস সালামের ছেলে ফখরুল ইসলামকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। খন্দকার ফখরুল ইসলামের নামে উক্ত পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদটি সম্পূর্ণ উদ্দেশ্য প্রণোদিত, মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। এ বিষয়ে তারা স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে সাক্ষ্য দিতে রাজি আছেন। তারা বলেন, তারা সুপরিচিত ও স্বনামধন্য সমাজসেবক খন্দকার ফখরুল ইসলামের বিরুদ্ধে অসত্য মিথ্যা ঘটনা সমর্থন করতে পারেন না বিদায় উল্লেখিত প্রতিবেদনটির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছেন।