ঢাকা, আজ মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১

চান্দিনায় ইভিএম ভোগান্তির মধ্য দিয়ে চলছে ভোট গ্রহণ: সংঘর্ষে আহত ৪ আটক ২

প্রকাশ: ২০২১-০১-১৬ ০৬:৫৮:৩৫ || আপডেট: ২০২১-০১-১৬ ০৬:৫৮:৩৫

বিশেষ প্রতিনিধিঃ

চান্দিনা পৌরসভা নির্বাচন আজ শনিবার (১৬ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের ১১টি স্থানে ১৫টি কেন্দ্রে সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে একটানা ভোটগ্রহণ করার কথা রয়েছে। দ্বিতীয় ধাপে কুমিল্লা জেলায় একমাত্র পৌরসভা হিসেবে চান্দিনা পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে আজ । ফলে গোটা জেলাবাসীর দৃষ্টি চান্দিনা পৌর নির্বাচনের দিকেই।
নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচন কমিশন এর পক্ষ থেকে সব প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন করা হয়েছে। বিজিবি, র‌্যাব, পুলিশ ও আনসার সহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে নির্বাহী ও বিচারিক হাকিমরাও সরব রয়েছে ভোটের মাঠে।

কঠোর নিরপত্তা, শান্তিপূর্ণ ও সরব ভোটার উপস্থিতির মধ্য দিয়েই সকাল থেকে চলছে ভোট গ্রহণ। প্রতিটি ভোট কেন্দ্রেই সকাল থেকে নারী ভোটারদের উপস্থিতি চোখে পড়ার মত। সকাল এসেই লম্বা লাইনে দাড়িয়ে একে একে ভোট দিচ্ছেন তারা। সর্বোচ্চ সতর্কতায় রয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরাও। ভোটকেন্দ্রর আশেপাশের জটলা দেখলেই ছত্রভঙ্গ করে দেয়া হচ্ছে ধাওয়া দিয়ে।

এদিকে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট প্রদানে ভোটারদের বেশ ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। প্রতিটি ভোটের জন্য গড়ে ৫/৬ মিনিট সময় ব্যয় হচ্ছে। মাঠ পর্যায়ে ইভিএম নিয়ে ব্যপক প্রচারণা না থাকায় ভোট গ্রহণে দায়িত্বরতদের অনেটা নাজেহাল অবস্থা হচ্ছে। শনিবার সকাল ৮টা থেকে সরেজমিনে চান্দিনার পৌরসভার হাড়ং উচ্চ বিদ্যালয়, রারীরচর ও বিশ্বাস সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায় মাঠে মহিলা ও পুরুষ ভোটারদের ব্যপক উপস্থিতি।

ভোটারদের অভিযোগ বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রার্থীদের লোকজন ইভিএম বিষয়ে তাদের ভোট দেয়ার পদ্ধতি না জানানোর কারণে ভোট দিতে দেরী হচ্ছ।
বিশ্বাস সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার আতিক উল্লাহ জানান, ভোট কেন্দ্রে আমরা ইভিএম বিষয়ে ভোটারদের জন্য প্রদর্শনীর আয়োজন করে ছিলাম, এতে অধিকাংশ ভোটার আসেনি, তাই ভোট প্রদানে আমাদের কে ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে। উল্লেখ্য ৯টি ওয়ার্ডের ১৫ টি কেন্দ্রে মোট ভোটার রয়েছে ৩১হাজার ৮৪৮ জন। এরমাঝে পুরুষ ভোটার ১৫হাজার ৬৭৮ ও মহিলা ভোটার ১৬হাজার ১৭০জন।

এদিকে সকালে ভোট গ্রহণের শুরুতেই মধ্যহাড়ং ভোট কেন্দ্রের সামনে দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মাঝে ২ দফা সংঘর্ষে ৪ জন গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে রয়েছে বলে জানা গেছে। পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাৎক্ষণিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। ওদিকে ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর দুলাল ও উটপাখির পক্ষে ভোটারদের ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগে পৌর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বহিরাগত ২জনকে আটক করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এছাড়া কোথাও কোন বিশৃঙ্খলার খবর পাওয়া যায়নি।

গতকাল শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও পৌর নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং অফিসার মো আহসান হাবীব জানায়, অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষে তারা কাজ করে যাচ্ছেন। নির্বাচন ঘিরে ২প্লাটুন বিজিবি, র‌্যাব-১১ এর ৩টি টিম, আনসারের ১শত ৩৫ জন সদস্য কাজ করবেন। এছাড়া এবারই প্রথম রেকর্ড সংখ্যক পুলিশ সদস্য নির্বাচনকে ঘিরে কাজ করছেন। নির্বাচনের দিন ৪ শত ৫০ জন পুলিশ সদস্যের ৩ স্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থার গ্রহণ করেছে জেলা পুলিশ।

১৫জন প্রিজাইডিং অফিসার, ৯২ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও ১শত ৮৪ জন পুলিং অফিসার কাজ করছেন বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রে।
আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর বিষয়ে চান্দিনা থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি)শামসউদ্দীন মোহাম্মদ ইলিয়াছ বলেন, কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ পিপিএম (বার) সরাসরি নির্বাচনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা সার্বক্ষনিক মনিটরিং করছেন । এছাড়া জেলা পুলিশ এর পক্ষ থেকে ৪ জন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, ৫ জন সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপারসহ ৩ স্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থায় ৪শত ৫০জন পুলিশ সদস্য নির্বাচনে কাজ করছেন। তিনি আরও জানান ১৫টি কেন্দ্রের মধ্যে সবগুলোকেই ঝুঁকিপূর্ণ ধরে নিয়ে কাজ করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।