ঢাকা, আজ শনিবার, ৮ মে ২০২১

লাকসাম পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীর প্রার্থিতা বাতিল, তাড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ

প্রকাশ: ২০২১-০১-০৫ ১১:৫৫:২৮ || আপডেট: ২০২১-০১-০৫ ১১:৫৫:২৮

লাকসাম প্রতিনিধি :
কুমিল্লার লাকসাম পৌরসভা নির্বাচনের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থীর সমর্থনকারীকে তাড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এদিকে, সমর্থনকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার দফতরে হাজির হতে না পারায় বিএনপি প্রার্থী বেলাল হোসেন মজুমদারের প্রার্থিতা বাতিল করা হয়েছে। এতে বিনা ভোটে মেয়র হতে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আবুল খায়ের। রবিবার মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও লাকসাম ইউএনও এ কে এম সাইফুল আলম এই ঘোষণা দেন।

আগামী ৩০ জানুয়ারি ওই নির্বাচনের ভোট গ্রহণ হবে।

দ্বিতীয় দফায় মেয়র হতে যাওয়া আবুল খায়ের লাকসাম উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক। বিএনপির মেয়র প্রার্থী বেলাল হোসেন মজুমদার সোমবার বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘রবিবার লাকসাম উপজেলা কমপ্লেক্স মিলনায়তনে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই ছিল। এদিন আমার সমর্থনকারী পৌর যুবদলের সাবেক সভাপতি মাহবুবুর রহমানকে উপজেলা ফটকের সামনে মারধর করে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। এতে তার সমর্থনকারীকে রিটার্নিং কর্মকর্তার দফতরে হাজির করতে পারেননি। সমর্থনকারীকে মারধর করে তাড়িয়ে অন্যায়ভাবে তার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়।
তিনি নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলাপ করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেবেন।
রিটার্নিং কর্মকর্তা এ কে এম সাইফুল আলম গণমাধ্যমকে বলেন, মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের সময় আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী মো. আবুল খায়ের অভিযোগ করেন, বিএনপি প্রার্থীর সমর্থনকারী মাহবুবুর রহমানের স্বাক্ষর সঠিক নয় এবং বিএনপির প্রার্থীকে তিনি সমর্থন করেননি। তিনি বাছাইয়ের সময় উপস্থিত হননি। এ অবস্থায় রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে বেলাল হোসেনের প্রার্থিতা বাতিল করা হয়। তবে রিটার্নিং কর্মকর্তা স্বীকার করেন, বিএনপির প্রার্থী বাছাইয়ের সময় অভিযোগ করেছিলেন, তার সমর্থনকারীকে বাইরে মারধর করা হয়েছে। তিনি ভয়ে পালিয়ে গেছেন।

বর্তমান মেয়র ও আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী মো. আবুল খায়ের গণমাধ্যমকে বলেন, রিটার্নিং কর্মকর্তা বিএনপির প্রার্থীর প্রার্থিতা বাতিল করেছেন। তারা কাউকে মারধর করেননি। এসব অভিযোগ সঠিক নয়।