ঢাকা, আজ মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০

৫ম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে চৌদ্দগ্রামে ‘আমরা অসহায় মানুষের পাশে’ সংগঠনের উদ্যোগে অনুদান ও সম্মাননা প্রদান

প্রকাশ: ২০২০-১১-১৩ ১৪:৩৩:৫৬ || আপডেট: ২০২০-১১-১৩ ১৪:৩৬:১৮

চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধিঃ

‘শিক্ষিত ও দারিদ্রমুক্ত সমাজ গঠনই আমাদের অঙ্গীকার’- এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে মানব সেবায় ৫ম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে ‘আমরা অসহায় মানুষের পাশে’ সংগঠনের উদ্যোগে অসহায় মানুষের মাঝে অনুদান হস্তান্তর এবং বিশিষ্টজনদের সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়েছে। এ উপলক্ষে শুক্রবার মিয়াবাজার ডিগ্রি কলেজ মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভা ও কেক কাটা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চৌদ্দগ্রাম উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মিয়াবাজার ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ রহমত উল্যাহ বাবুল। বিশেষ অতিথি ছিলেন উজিরপুর ইউপি চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন খোরশেদ ও কাশিনগর ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক আরিফুর রহমান মঞ্জু। আমরা অসহায় মানুষের পাশে হোয়াটস্ অ্যাপ গ্রুপের এডমিন মোঃ মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে ও সিনিয়র সদস্য হোসাইন মাহমুদের সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন রক্ত কমল ফাউন্ডেশনের সভাপতি সানাউল আজম মেহেদী, আমরা কুমিল্লার সন্তান হোয়াটস্ অ্যাপ গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা আজাদ আশরাফ, সদস্য নিজাম উদ্দিন নয়ন, আমরা অসহায় মানুষের পাশে সংগঠনের সিনিয়র সদস্য ইকবাল মাহমুদ। অনুষ্ঠানে কোরআন তেলাওয়াত করেন মাওলানা ছানা উল্লাহ। আলোচনা শেষে ধর্মপুরের ইসমাইল হোসেন ও রাজেশপুরের বিল্লাল হোসেনের মাঝে অনুদান হস্তান্তর করা হয়। এ সময় অনুষ্ঠানে আমরা অসহায় মানুষের পাশে সংগঠনের ইকবাল হোসেন শুভ, ইকবাল মাহমুদ, হারুনুর রশিদ, মীর হোসেন, আবদুল মোতালেব, আবদুল মন্নান, আবদুল হান্নান, মোঃ মোস্তফা, আবু ইফসুফ নয়ন, খোরশেদ আলম, ইসমাইল হোসেন জয়, ছানা উল্লাহ, তৌসিফ খন্দকার, হাবিব আপন, আবুল কালাম আজাদ, সুলতান আহমেদ, সোহাগ মিয়া, মাঈন উদ্দিন, মোঃ ইমরান, মোঃ শাহজাহানসহ বিভিন্ন সংগঠনের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক এবং গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, ২০১৬ সালের ১ নভেম্বর ‘আমরা অসহায় মানুষের পাশে’ সংগঠনের প্রতিষ্ঠার পর থেকে অসহায় মানুষের তিনটি ঘর নির্মাণে ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা করে, ৭৮ পরিবারকে সাহায্য, ৫ জন মেয়ের বিয়ের জন্য আর্থিক সহায়তা, ১০ জন রোগীকে চিকিৎসা বাবদ আর্থিক সহায়তা, ৩০টি মাদরাসায় ইফতার সামগ্রী বিতরণ, ৮০ জন মাদরাসা ছাত্রকে পোশাক প্রদান এবং বিভিন্ন সচেতনতামূলক কর্মসূচি পালন করে। অতীতের মত ভবিষ্যতেও প্রবাসীরা অসহায় মানুষের কল্যাণে কাজ করবে এ প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তারা।