ঢাকা, আজ শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০

দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেয়া হলো লালমাই উদ্ভিদ উদ্যান

প্রকাশ: ২০২০-১১-০৮ ০৯:০১:৪৫ || আপডেট: ২০২০-১১-০৮ ০৯:০৪:৫৩

নাফিউ জামানঃ

বিরল প্রজাতির উদ্ভিদের সমাহার ও কুমিল্লার ফুসফুস খ্যাত “লালমাই উদ্ভিদ উদ্যান” দর্শনার্থীদের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়েছে। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে কুমিল্লা নগরীর কোটবাড়ির সালমানপুরে অবস্থিত উদ্যানটি উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ বন অধিদফতরের প্রধান বনরক্ষক আমির হোসেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা সামাজিক বন অঞ্চলের বনরক্ষক ইমরান আহমেদ, কুমিল্লা সামাজিক বন বিভাগের বিভাগীয় কর্মকর্তা কাজী মোঃ নুরুল করিম, কুমিল্লা বন মামলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ তোষাররফ হোসেন, লালমাই উদ্ভিদ উদ্যানের রেঞ্জ অফিসার হাফেজ আহমেদ।

জানা যায়, ঢাকার মিরপুর ও চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডের পর কুমিল্লার লালমাই উদ্ভিদ উদ্যান দেশের তৃতীয় বিরল উদ্ভিদ উদ্যান। ২০১৫ সালে কাজ শুরু হয়ে চলতি বছর এটির কাজ শেষ হয়। ১৭ একর আয়তনের লালমাই উদ্ভিদ উদ্যান নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় ১৭ কোটি টাকা। যেখানে শতাধিক প্রজাতির উদ্ভিদ রয়েছে। যার মধ্যে সিংহভাগ বিপন্ন ও দুস্প্রাপ্য প্রজাতির উদ্ভিদ রয়েছে। ভবিষ্যতে উদ্যানটির বিস্তৃত আরো বাড়ানো হবে। সে জন্য আরো অন্তত ৩০ একর জমি অধিগ্রহণ করা হবে।

বাংলাদেশ বন অধিদফতরের প্রধান বনরক্ষক আমির হোসেন বলেন, কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের কাছাকাছি কোটবাড়ী লালমাই পাহাড়ে গড়ে তোলা হয়েছে উদ্যানটি। কুমিল্লাবাসীর ফুসফুস হিসেবে কাজ করবে লালমাই উদ্ভিদ উদ্যান। বিরল ও বিপন্ন প্রজাতির উদ্ভিদ থাকায় শিক্ষার্থী ও শিশুরা উদ্ভিদ সম্পর্কেও জানতে পারবে।

কুমিল্লা সামাজিক বন বিভাগের বিভাগীয় কর্মকর্তা কাজী নুরুল করিম জানান, প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত উদ্যানটি দর্শনার্থীর জন্য খোলা থাকবে। যারা পরিবার নিয়ে আসবেন, তারা একটি সতেজ সময় কাটাতে পারবেন। প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ২০ টাকা, অপ্রাপ্তবয়স্ক ও শিক্ষার্থীদের জন্য ৫ টাকার টিকেট করা হয়েছে।