ঢাকা, আজ মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০

ধর্ম নিয়ে কটূক্তি, আইডি হ্যাক হওয়ার দাবি জবি শিক্ষার্থীর

প্রকাশ: ২০২০-১০-২৪ ১৫:৩০:৩২ || আপডেট: ২০২০-১০-২৪ ১৫:৩০:৩২

নিউজ ডেস্কঃ

ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে দেশজুড়ে সমালোচিত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের শিক্ষার্থী তিথি সরকার আইডি হ্যাক হয়েছে দাবি করে নিজের নিরাপত্তা চেয়ে আইনের আশ্রয় নিয়েছেন। গতকাল শুক্রবার রাজধানীর পল্লবী থানায় এ বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তিনি।

জিডিতে তিথী উল্লেখ করেছেন, অদ্য ২৩/১০/২০২০ তারিখে জানতে পারি আমার ফেসবুক আইডি কে বা কারা হ্যাক করে বিভিন্ন ধরনের পেজ ও গ্রুপে আমার আইডি ব্যবহার করে মন্তব্য করে আসছে। যাতে ধর্মীয় দৃষ্টিভঙ্গির অবক্ষয় হচ্ছে। আমি আশংকা করছি, উক্ত বিষয়টি নিয়ে আমার ক্ষতি করতে পারে। আমার আইডি ‘Tithi Sarker’ নামে খোলা ছিল।

এদিকে তিথি সরকারকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বহিষ্কারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।শনিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে এ বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। এসময় সাধারণ শিক্ষার্থীরা তিথি সরকারকে বহিষ্কারে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে ৭২ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেন। মঙ্গলবারের মধ্যে তিথি সরকারকে বহিষ্কার না করলে সাধারণ শিক্ষার্থীরা অনশনসহ কঠোর কর্মসূচির হুঁশিয়ারি দেন।

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন শিক্ষার্থীরা। মিছিল ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে শান্ত চত্বরে এসে শেষ হয়। এসময় শিক্ষার্থীরা তিথি সরকারের বহিষ্কারের দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দেন। বিক্ষোভ মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে সাধারণ শিক্ষার্থীরা বলেন, অবিলম্বে ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তিকারী তিথি সরকারকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বহিষ্কার করতে হবে। অতিদ্রুত তাকে আইনের আওতায় নিয়ে এসে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। নাহলে আমরা বৃহৎ আন্দোলন গড়ে তুলব।

এদিকে জবি শাখা ছাত্র অধিকার পরিষদের দপ্তর সম্পাদক তিথী সরকারকে এ সকল কর্মকান্ড সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই তাকে সংগঠন থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়। একইসঙ্গে তাকে কেন স্থায়ী ভাবে বহিষ্কার করা হবে না জানতে চেয়ে সাতদিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর জন্য বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, বিশ্ব হিন্দু সংগ্রাম পরিষদের জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আহ্বায়ক তিথি সরকার ফেসবুকে ‘আল্লাহ’, মহানবী হজরত মোহাম্মদ (সা.) ও ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করলে সাধারণ শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভে ফেটে পড়েন। এ ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় সাধারণ শিক্ষার্থীরা মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা নেয়নি।