ঢাকা, আজ মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১

আধুনিক সভ্যতার জাতাঁকলেঃ রাসেল উদ্দিন

প্রকাশ: ২০২০-১০-১৭ ১৭:২৮:৩০ || আপডেট: ২০২০-১০-১৭ ১৭:২৮:৩০

নগর সভ্যতা আমাদের সোনালী শৈশবের বেড়ে উঠা স্মৃতি গুলো কেড়ে নিয়েছে ধীরে ধীরে… আমরা ভুলতে শুরু করেছি আমাদের একটা স্বার্গীয় শৈশব ছিলো… ক্লাস ওয়ান থেকে বেড়ে উঠা বন্ধুদের সাথে হাজারও দুষ্টামি… টিফিনের ভাগ… কলমের ব্যথা মিশ্রীত খোঁচা আর প্রিয় শিক্ষকের শাসন মাখানো বেতের অধিকার।

দাদী নানির মুখে হাজারও মুখোরচক গল্প শুনে কল্পনায় হারানোর এক সুন্দর সময় আমরা হারিয়ে এসেছি। এক টাকার চানাচুর চারজনে ভাগ করে খাওয়ার ভ্রাতৃত্ব মিশে থাকা এক দুরন্ত শৈশব আমরা ভুলতে বসেছি আধুনিকতার আকড়ে ধরার দাপটে।

বিকেলের মাঠে দুরন্ত কিশোরের অবিরাম ছুঁটে চলা, সন্ধ্যা ফিরে মায়ের বকুনিঝকুনি, আর ছুটির দিনে বাংলা সিনেমার মাদকতায় ভুদ হয়ে থাকা একটা আবেগি শৈশব আমরা সযত্নে তুলে দিয়েছি আধুনিকতার হাতে।

বোধজ্ঞান হীন একটা কিশোরের হাজার দোষ ক্ষমা করা স্নেহের হাত গুলো আমরা হারিয়ে ফেলেছি সময়ের প্রতিদানে। বড় হতে হতে আমরা কখন নিজেদের ছোট করে ফেলেছি বুঝতে পারিনি। আমরা ক্ষমার বদলে ঘৃনা দিতে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছি।

ধর্ম বর্ণ জাত বিজাত বুঝতে না পারার একটা শৈশব ছিলো আমাদের, সেসময় বিভেদ বিষাদের হিসেব ছিলো না মাথায়। আমরা মানুষ হতে হতে কখন যে অমানুষ গুনতে শুরু করেছি বুঝতে পারিনি।

আমাদের সভা-সমাবেশে এখন আলাদা আলাদা আসন থাকে, আমাদের পাড়ায় জাত বিভেদের পোস্ট সেঁটে দেওয়া… আমরা সভ্য হতে গিয়ে ধর্ম বর্ণ আলাদা করতে শুরু করেছি।

‌ঈদের দিনে হিন্দু বন্ধুর সেমাই পায়েস খাওয়া আর পুঁজোর সময় মাসীমার বানানো সন্দেশের আনন্দ গুলো আমরা হারিয়ে ফেলেছি উচ্চশিক্ষার দাম্ভিকতায়। আর হিন্দু মুসলমান দাঙ্গায়।

আমরা বড় হয়ে গেছি, আমাদের ভিতরে বাসা বেঁধেছে অহামিকা… আমাদের শৈশবের বন্ধু গুলো হারিয়ে গেছে ব্যস্ত জীবনের শুশ্রষা করতে করতে। আমাদের নিরহংকার শৈশবটা মুছে সভ্য হতে হতে এতটাই সভ্য হয়ে গেছি যে, আমরা ভুলে যাই রক্ত মাংসের মানুষে ধর্মের আগে মানুষ্যত্ব বড্ড প্রয়োজন।