ঢাকা, আজ মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০

চৌদ্দগ্রামে পূর্ব বিরোধের জেরে নগদ টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার লুটের অভিযোগ

প্রকাশ: ২০২০-১০-১০ ১০:২২:৫৩ || আপডেট: ২০২০-১০-১০ ১০:২৩:১১

মোঃ শাহীন আলম, চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে পূর্ব বিরোধের জের ধরে নগদ টাকা ও স্বর্ণালঙ্কারসহ ১৯ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট এবং প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় শনিবার ভুক্তভোগী হুমায়ন কবির বাদি হয়ে ঘোলপাশা ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের মৃত মজিবুল হকের স্ত্রী মাহিনুর বেগম, মৃত আলী আজ্জমের মেয়ে মীর হোসেন, মৃত নাজির আহম্মেদের ছেলে বদিউল আলম বদু মিয়া, কাশিনগর ইউনিয়নের সাতবাড়িয়া দাতামার আবদুর রশিদের ছেলে শহিদুল হক শাহিন, মঞ্জুর মোর্শেদ রনি, মাহবুব মোর্শেদ ডালিমসহ অজ্ঞাতনামা আরও ৪-৫ জনের বিরুদ্ধে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

চৌদ্দগ্রাম থানায় দায়েরকৃত অভিযোগে জানা গেছে, রামচন্দ্রপুর কেন্ডা গ্রামের হুমায়ন কবিরের সাথে তার ছোট ভাই মজিবুল হকের বসতবাড়ি ও জায়গা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। একাধিকবার চেষ্টা করেও সামাজিকভাবে বিষয়টি মিমাংশা করা যায়নি।

এক পর্যায়ে হুমায়ন কবিরের স্ত্রী হাছিনা বেগম বাদি হয়ে শাহিন, রনি, ডালিম, মাহিনুর বেগম, মীর হোসেন ও বদু মিয়ার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করে। এতে ক্ষীপ্ত হয়ে বিবাদিরা হুমায়ন কবির, তার স্ত্রী হাছিনা বেগম ও সন্তানদের প্রাণে হত্যা করার হুমকি দিতে থাকে। এরই মধ্যে কঠিন রোগে আক্রান্ত হয়ে মুজিবুল হক ২৬ মে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।

মাহিনুর আক্তার হীন উদ্দেশ্যে হুমায়ন কবির ও তার স্ত্রী-সন্তানদের বিরুদ্ধে চৌদ্দগ্রাম থানায় একটি মামলা দায়ের করে। এরপর তারা হাইকোর্ট থেকে জামিনে মুক্তি লাভ করে। জামিন লাভের খবর শুনে মাহিনুর আক্তারসহ তার পক্ষের লোকজন দিয়ে হুমায়ন কবিরের পরিবারকে বাড়িতে আসতে দিবে না মর্মে হুমকি-ধমকি দেয়া অব্যাহত রেখেছে।

এরই ধারাবাহিকতায় হুমায়ন কবিরের বসতঘরের দরজার লক খুলে দুইটি আলমারির দরজা ও ড্রয়ারের লক ভেঙে ভিতরে থাকা ৭ লাখ টাকা, ১১ ভরি ওজনের স্বর্ণালঙ্কার, ১টি টিভি, ১টি ল্যাপটপ, ২টি স্ট্যান্ট ফ্যান, ১ টি গ্যাস সিলিন্ডার চুলাসহ প্রয়োজনীয় মালামাল লুটে নিয়ে যায়। এছাড়া বিভিন্ন মূল্যবান জিনিসপত্র ভাংচুর করে। তাৎক্ষণিক ঘটনাটি গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানালে তারা আইনের আশ্রয় নেয়ার পরামর্শ দেন।