ঢাকা, আজ মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০

শ্রীমঙ্গলের রনধীর কুমার দেবঃ একজন নন্দিত মানুষের নাম

প্রকাশ: ২০২০-০৯-২২ ১৭:৪৭:৫৪ || আপডেট: ২০২০-০৯-২২ ১৭:৪৭:৫৪

শান্তনু হাসান খান (বিশেষ প্রতিনিধি)ঃ

করোনা ভইরাস মহামাররি মধ্রেই এবার দেশজুড়ে স্থানীয় সরকারের উন্নয়ন থেমে নেই। ৫ম উপজেলা পরিষদ নিবার্চনের জনপ্রতিনিধিরা কাজ করছেন যার যার এলাকায়। আর সেই আলোকে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রনধীর কুমার দেব কোনোভাবেই থেমে নেই।

চা বাগান খ্যাত শ্রীমঙ্গেলের নামডাক গোটা এশিয়াতে সমাদৃত। এই জনপদে যিনি বারবার কাজ করে নন্দিত- তিনি রনধীর কুমার। সারাজীবন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ লালন করেছেন। আর সেবাব্রত মনোভাব নিয়ে প্রথমেই তার ইউনিয়ন সাতগাঁও পরিষদের টানা ৩ বারের জনপ্রতিনিধি নিবার্চিত হন। বর্তমানে শ্রীমঙ্গল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান।

২০০৯,১৪ আর ১৯শের নিবার্চনে তিনি বিপুল ভোটে বিজয়ী। ছাত্রজীবনের ছাত্রলীগের নেতৃত্ব দেন প্রচন্ড দাপটে। পরে জাতীয় রাজনীতীতে সম্পৃক্ত হন। একসময উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ছিলেন। বর্তমানে জেলার অন্যতম সদস্য। রনধীর বাবু বলেন, দীর্ঘদিন আমি মানুষের পাশে থেকে রাজনীতি করে আসছি।

জীবনে  প্রতিটি ক্ষেত্রে তাদের পাশেই ছিলাম, এখনো আছি। তিনি বলেন, সরকারি বরাদ্দ আর বাজেটের ওপর নির্ভর করে উন্নয়নের কাজ করতে হয়। আর এখানকার মাননীয় সাংসদের সঠিক নির্দেশনায় বাস্তবায়ন করার চেষ্টা করছি। আমার গ্রাম- আমার শহর এই প্রতিপাদ্যকে বাস্তবায়ন করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেশ কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন।

তাঁর নির্দেশনা এবং সকল উন্নয়ন কর্মকান্ড সচ্ছতার মধ্য দিয়ে কাজ করতে চাই। রনধীর বলেন, আমার শ্রীমঙ্গলে দীর্ঘদিন উন্নয়ন কর্মকান্ড করে শতভাগ বিদ্যুতায়ন, রাস্তাঘাট, ব্রীজ কার্লভাটসহ গ্রামীন অবকাঠামো এবং কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো সফলভাবে তদারকি করেছি। তিনি বলেন, আমার এলাকার সবকটি ইউনিয়নে এল জি এস পি সহ সকল কর্মসূচী সচ্ছতার মধ্য দিয়ে কাজ হচ্ছে।

সরকারী অনুদান, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, মুক্তিযোদ্ধা ভাতা সহ সকল উন্নয়ন কর্মকান্ড সমাপ্ত করেছেন একজন ট্যাগ অফিসারের মাধ্যমে। এখানে কোনো অনিয়ম করার সুযোগ ছিল না। এছাড়া সাম্প্রতিক করোনা ভাইরাসের প্রভাবে সরকারি ত্রাণ ছাড়াও আমি ব্যক্তিগতভাবে বেশকিছু মানুষকে বিভিন্ন সহায়তা প্রদান করেছি। তিনি বলেন, মাদক, সন্ত্রাস আর জঙ্গীবাদ এই তিনটি হচ্ছে উন্নয়নের প্রধান বাধা।

মাদকের বিরুদ্ধে আমার অবস্থান জিরো টলারেন্স। মাত্র ৬২ বছরের রনধীর কুমার দেব কোনো প্রকার কম্প্রোমাইজ ছাড়া আওয়ামী ঘরানার রাজনীতিতে ক্লিন ইমেজের মানুষ। তিনি বলেন, জবিনে কখনো দলীয় সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে রাজনীতি বানিজ্য করিনি। আমি রাজনীতি করি মানুষের জন্য। আর এলাকার উন্নয়নের জন্র জনগনের কাছে অনেকটা ঋনী। আমি চাইব আগামী দিনগুলো উন্নয়নের মধ্য দিয়ে তাদের ঋন পরিশোধ করতে।