ঢাকা, আজ বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০

চৌদ্দগ্রামে এক সন্তানের জননীর রহস্যজনক মৃত্যু

প্রকাশ: ২০২০-০৮-৩১ ১০:৪৩:৩২ || আপডেট: ২০২০-০৮-৩১ ১০:৪৩:৩২

চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার জগন্নাথদীঘি ইউনিয়নের হাটবাইর গ্রামে তাছলিমা আক্তার আঁখি(২৪) নামের এক সন্তানের জননীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।

সে ওই গ্রামের সিএনজি অটোরিকশা চালক আজিজুল হকের স্ত্রী ও কনকাপৈত ইউনিয়নের বসকরা গ্রামের আবদুল মান্নানের মেয়ে। খবর পেয়ে কনকাপৈত পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের একটি টিম লাশটি উদ্ধার ও ময়নাতদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করে। সোমবার বিকেলে তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন কনকাপৈত পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই মোঃ রেজাউল করিম।

নিহত তাছলিমা আক্তারের পিতা আবদুল মান্নান সাংবাদিকদের নিকট অভিযোগ করেন, ২০১৩ সালে ৩ লাখ টাকা দেনমোহরে তাছলিমা আক্তার আখিকে বিয়ে করে আজিজুল হক। বিয়ের পর বিভিন্ন সময়ে যৌতুক হিসেবে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা নিয়ে যায় আজিজুল হক।

তাদের দাম্পত্য জীবনে আকাশ নামে ছয় বছর বয়সী এক পুত্র সন্তান রয়েছে। প্রায় সময় আরও যৌতুক দেয়ার জন্য তাছলিমার উপর শারিরীক নির্যাতন করে আজিজুল হক ও তার পরিবারের লোকজন। এ নিয়ে বেশ কয়েকবার শালিশ দরবার হয়েছিল। সর্বশেষ গত ৩০ আগস্ট রোববার সকালে যৌতুকের টাকার জন্য তাছলিমার উপর শারিরীক নির্যাতন করে আজিজুল হক।

এক পর্যায়ে তাছলিমা আক্তার আখির মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে এসআই রেজাউল করিমের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশটি উদ্ধার করে। ৩১ আগস্ট সোমবার কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে লাশটি হস্তান্তর করা হয়।

এ ব্যাপারে কনকাপৈত পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই রেজাউল করিম বলেন, ‘তাছলিমা আক্তার আঁখির মৃত্যুর ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। ঘটনাটি হত্যা না আত্মহত্যা ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলেই বিস্তারিত জানা যাবে’।