ঢাকা, আজ বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০

লালমাইয়ে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সাংবাদিক সম্মেলন

প্রকাশ: ২০২০-০৮-২১ ১১:৪৬:২৭ || আপডেট: ২০২০-০৮-২১ ১১:৫০:০৪

লালমাই প্রতিনিধি ঃ কুমিল্লার লালমাই উপজেলার ৬নং পেরুল দক্ষিণ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এজিএম সফিকুর রহমান কর্তৃক একই ইউপির ০১নং ওয়ার্ড সদস্য মোঃ মোবারক হোসেনকে ১৯ই আগষ্ট বিকাল ৫টায় মারধর করায় আজ শুক্রবার ২১ই আগষ্ট বিকাল তিনটায় সদস্যের নিজ বাড়িতে সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন। সাংবাদিক সম্মেলনে ইউপি সদস্য মোবারক হোসেন জানান, খলিলপুর গ্রামের বড় মসজিদের ইমাম হাফেজ মাওলানা মোজাম্মেল হকের বিরুদ্ধে প্রতিবেশি আবদুল মতিন ইউপি চেয়ারম্যান এজিএম সফিকুর রহমানের গ্রাম আদালতে অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে সফিক চেয়ারম্যান ইমাম হাফেজ মাওলানা মোজাম্মেল হককে বোর্ড অফিসে আসতে বলে। ইউপি সদস্য ওই মসজিদের সহ-সভাপতি হওয়ায় ইমাম সাহেব তাকে চেয়ারম্যান কার্যালয়ে নিয়ে যায়। চেয়ারম্যান অফিসে প্রবেশের পর চেয়ারম্যান ইউপি সদস্য মোবারককে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করতে থাকে, পরে চেয়ার থেকে উঠে লাঠি দিয়ে আঘাত করে। তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গলা চেপে ধরে। ইউপি সদস্যের চিৎকার শুনে ইউপি সচিব মোঃ মাকসুদুর রহমান, আওয়ামী নেতা মিজানুর রহমান, ইমাম সাহেবসহ সবাই উদ্ধার করে ইউপি সদস্যকে লাকসাম সরকারী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠান। এর আগেও একাধিকবার ইউপি সদস্যকে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করেছে সফিক চেয়ারম্যান। ইউপি সদস্য মোস্তফা কামাল বলেন, ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশসহ সাধারণ লোকজনদেরকে কারনে অকারনে সফিক চেয়ারম্যান মারধর করে। চেয়ারম্যান এজিএম সফিকুর রহমানের দূর্ণীতি ও অনিয়মের কথা যে কেউ বললেই তার উপর চড়াও হন। সরকারী চাকুরী দেওয়ার নাম করে এলাকার নিরীহ লোকজনের কাছ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ রয়েছে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে । চেয়ারম্যান সফিকুর রহমান সহজ সরল লোকজনের নামে ব্যাংক ঋণ তুলে নিজেই লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে গেছে যা উপজেলার সকল নেতা-কর্মীরা জানে। তার বিরুদ্ধে বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতা, পঙ্গু ভাতা, ভিজিডি, ভিজিএফ, মাতৃত্বকালীন ভাতাসহ সকল ভাতায় দূর্ণীতির অভিযোগ রয়েছে। ইউপি সদস্য মোবারক হোসেন ১লক্ষ টাকা সফিক চেয়ারম্যানের নিকট পাওনা আছে। তার অত্যাচারে স্থানীয় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের ত্যাগী নেতা-কর্মীরা অতিষ্ঠ। ইউপি সদস্যগণ ও স্থানীয় জনগণ এলাকার সংসদ সদস্য, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় অর্থমন্ত্রীর ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।