ঢাকা, আজ শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০

এমপিওভুক্তি না হওয়ায় বেসরকারি কলেজের অনার্স -মাস্টার্স শিক্ষকদের মানবেতর জীবন যাপন

প্রকাশ: ২০২০-০৭-১২ ১২:২৩:৩৫ || আপডেট: ২০২০-০৭-১২ ১২:২৩:৩৫

ডেস্ক রিপোর্টঃ

বাংলাদেশ বেসরকারি কলেজ অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক ফোরাম কুমিল্লা জেলার উদ্যোগে এমপিওভুক্তির দাবিতে সংবাদ সম্মেলনে করেছে এমপিওভুক্ত কলেজের ননএমপিও অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষকরা। রবিবার সকাল ১১টার দিকে কুমিল্লা নগরীর একটি রেস্টুরেন্টে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষক নেতৃবৃন্দ দীর্ঘ দিন যাবত শিক্ষকতা করেও এমপিওভুক্তি না হওয়ার কারণে তারা যে মানবেতর জীবন যাপন করছে সে চিত্র তুলে ধরেন।সংবাদ সম্মেলনে কুমিল্লা জেলা কমিটির পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ফোরামের কুমিল্লা জেলার আহবায়ক নুরে আলম খন্দকার।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, সুনির্দিষ্ট নীতিমালা না থাকায় এমপিওভুক্ত কলেজে চাকরি করেও অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক ও কর্মচারীরা এমপিওভুক্ত না হওয়ায় সরকারি সুবিধা পাচ্ছেন না। ফোরামের দাবী ১৩ জুলাই সোমবার জনবল কাঠামো সংশোধনীর যে মিটিং হবে সেখানে যেন জনবল কাঠামোতে অনার্স-মাস্টার্স স্তরের শিক্ষকদের অন্তর্ভুক্ত করে এমপিওভুক্তি সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়।

কুমিল্লার বেসরকারী অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধি অনুযায়ী প্রতিষ্ঠান থেকে শতভাগ বেতন দেওয়ার নির্দেশনা থাকলেও তা মানা হয় না। দিলেও নিয়মিত বেতন দেয়না। এসব প্রতিষ্ঠান থেকে বিগত ২৮ বছরে প্রায় ৪০ লাখ শিক্ষার্থী উচ্চশিক্ষা নিয়ে বিসিএস সহ বিভিন্ন সেক্টরে কর্মে যোগদান করেছেন। অথচ শিক্ষকরা মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। “আর এই রকম অমানবিক নজীর পৃথিবীর কোথাও নেই”!

“ইতিমধ্যেই অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষকদের এমপিওভুক্তির উদ্যোগের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করায়, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী,মাননীয় শিক্ষা উপমন্ত্রী,জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মান্যবর ভিসি,শিক্ষক নেতা অধ্যক্ষ শাহজাহান আলম সাজুসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ফোরামের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করা হয়”

গংবাদ সম্মেলনে ফোরামের কুমিল্লা জেলা আহবায়ক নূরে আলম খন্দকারের সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন, মো রাজিমুল হক,মো নূরুল আমিন,শামিম,মো দিদারুল আলম,মিনুয়ারা বেগম,শরিফুল ইসলাম,উম্মে ছালমা,শরমিন সুলতানা,আবু হানিফ,রোমানা আক্তার ,তারেক মাসুদ,কাজী নসপাসহ আরো অনেকে।সভা শেষে কুমিল্লা জেলা প্রশাসকের নিকট একটি স্বারকলিপিও প্রদান করা হয়।