ঢাকা, আজ শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০

কুমিল্লায় স্ত্রীর দেওয়া কিডনিতে বাঁচলো স্বামীর জীবন

প্রকাশ: ২০২০-০৭-০১ ০০:১৮:২১ || আপডেট: ২০২০-০৭-০১ ০০:১৮:২১

-মোঃ নাছির আহাম্মেদ (লালমাই)
কুমিল্লা জেলার লালমাই উপজেলায় কিডনি রোগে আক্রান্ত চাঁনকলমিয়া গ্রামের নাসির উদ্দিন মজুমদারকে কিডনি দান করে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন তার স্ত্রী খোদেজা আক্তার।
গত ২ মাস ঢাকার একটি বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি হয়ে ডাঃ এর নিবির পরিচর্যায় থেকে গতকাল
৩০শে জুন মঙ্গলবার সন্ধায় তাদের সফল কিডনী
ট্রানসপ্লান সার্জারি সম্পুর্ন হয়,বর্তমানে তারা দুজনে হাসপাতালের চিকিৎসাধীন আছেন।
জানা যায়,বাগমারা দক্ষিন ইউনিয়নের চাঁদকলমিয়া মজুমদার বাড়ির সৌদিআরব প্রবাসী নাসির উদ্দিন মজুমদার পেশায় একজন সিভিল ইন্জিনায়ার তিনি দেশে কিছুদিন বেসরকারি চাকুরি করার পর উন্নত জীবনের আশায় চলে যান সৌদিআরব।
সেখানে দীর্ঘদিন কাজ করার পরে শারিরীক অবস্থার অবনতি হলে শারিরীক অসুস্থতা নিয়ে দেশে চলে আসেন এবং স্থানিয় চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎসা নেন।
শারিরীক অবস্থার অবনতি হওয়ায় গত বৎসরের শেষের দিকে আবার হাসপাতালে ভর্তি হন,তখন ওনার সকল পরিক্ষা করার পর ডাক্তার বলেন তার দুটি কিডনী অকার্যকর হয়েগেছে,আগামী তিন,চার মাসের মধ্যেই যদি একটি কিডনী স্হাপন করতে পারেন,তাহলে আপনি আগের মতন সুস্হ হওয়ার সম্ভব।
চিকিৎসকের পরামর্শ’র পর গত একবছর প্রতি সপ্তাহে ৩ দিন ডায়ালাইসিস করে করে জীবনের সাথে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছিলেন,পাশাপাশি কিডনী খোজাখুজি শুরুকরেন,ওনার মা,বোন সহ নিকট পরিজনের অনেকের সাথে যোগাযোগ করলেন কিন্তুু কারো সাথে ওনার টিসুর মিল হচ্ছে না,ওনার মায়ের ডায়বেটিস থাকায় তিনি কিডনি দিতে পারবেন না,এরই মাঝে ওনার স্রী খোদেজা আক্তারের টিসু ও ব্লাড গ্রুপ মিল থাকায় রবিবার তিনি তার স্বামীকে কিডনি দানের মধ্যদিয়ে এমন দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন।

স্ত্রী খোদেজা আক্তার বলেন,
আমি আমার স্বামীকে আমার একটি কিডনী দান করে বাকি যে কয়টা দিন রব আমাদের হায়াৎ রেখেছেন সেই কয়েকদিন যেন একসাথে থাকতে পারি তাতেই আমি খুশি।
আমি বলেছিলাম আমার রক্ত,টিসু আমার স্বামীর সাথে না মিললেও আমি আমার কিডনী আমার স্বামীকে দান করতে প্রস্তুত,আল্লাহ পাক আমার ভালবাসাটাকে কবুল করে নিলেন,আমার সাথে আমার স্বামীর ব্লাড গ্রুপ ও টিসু মিলেগেল এবং আমি কিডনি দানের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম।

নিজের জিবনের মায়া না করে স্বামীর জীবন বাঁচানোর জন্য একটি কিডনী দান করে ভালবাসার মাইলফলক তৈরি করেছেন খোদেজা আক্তার যা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সাড়া পড়েছে।