ঢাকা, আজ মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০

কুমিল্লা প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যা করে দুর্বৃত্তরা

প্রকাশ: ২০২০-০৬-২৯ ০৮:৩৪:০০ || আপডেট: ২০২০-০৬-২৯ ০৮:৩৫:০৪

মো: রবিউল হোসাইন( সবুজ):

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে রাবেয়া আক্তার (২১) নামে প্রবাসীর স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। রবিবার (২৮ জুন) ১১ টার পর নাঙ্গলকোট উপজেলার মান্দ্রা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থল গিয়ে লাশ উদ্ধার করেন। ওই নারীর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণের প্রক্রিয়া চলছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার জোড্ডা পশ্চিম ইউনিয়নের মান্দ্রা গ্রামের আলী মিয়ার স্ত্রী জাহানারা বেগম রবিবার সকাল ১১টার দিকে বাজার করতে স্থাণীয় মান্দ্রা বাজারে যান। এ সুযোগে মোটরসাইকেলযোগে তিনজন লোক তাদের বাড়িতে প্রবেশ করে। তাদের মধ্যে একজন বাকী দুইজন যুবক ও একজন মধ্যবয়সী। ওই সময় বাড়িতে রাবেয়া আক্তার ও তার নানী জামিলা খাতুন (৭২) ছাড়া অন্য কেউ ছিলেন না।

ঘটনার সময় রাবেয়া ঘরে ছিলেন এবং তার নানী বাইরে তরকারি কাটছিলেন। মোটরসাইকেলে আসা তিন ব্যক্তি সুকৌশলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যাওয়ায় তিনি (জামিলা খাতুন) তাদেরকে দেখেননি। পরবর্তীতে ওই তরুণীর মা জাহানারা বেগম বাজার থেকে ফিরে মায়ের কাছে মেয়ের কোথায় তা জানতে চান।

এসময় জামিলা খাতুন তার মেয়েকে বলেন,মোটরসাইকেলযোগে সম্ভবত ব্যাংকের তিনজন লোক এসেছে। রাবেয়া তাদের সাথে কথা বলছে। বিষয়টি নিশ্চিত হতে সাথে সাথেই মা ঘরে গিয়ে মেঝেতে মেয়ের নিথর দেহ পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার করে কান্নাকাটি শুরু করে। মুহুর্তের মধ্যে আশে-পাশের লোকজন জড়ো হয়ে থানা পুলিশকে ঘটনাটি অবহিত করে। খবর পেয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থল ছুটে যান। রাবেয়াকে ধর্ষণ শেষে হত্যা করা হয়েছে বলে স্থাণীয়রা ধারণা করছেন।

বছর দুয়েক আগে কুমিল্লার জনৈক কাতার প্রবাসীর সাথে রাবেয়ার বিয়ে হয় বলে তারা জানান। বিয়ের পরও তিনি বাবার বাড়িতেই থাকতেন।

নাঙ্গলকোট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ওই নারীর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আসলে ধর্ষণ করা হয়েছে কিনা জানা যাবে।