ঢাকা, আজ বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০

আখাউড়ায় ৩ সাংবাদিকের ওপর হামলার দায়ে ৪জন কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

প্রকাশ: ২০২০-০৬-২৮ ১৩:৪৫:২৪ || আপডেট: ২০২০-০৬-২৮ ১৩:৪৫:৪৫

আখাউড়া প্রতিনিধিঃ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় মোগড়া ইউনিয়নের মোগড়া গ্রামে সংবাদ সংগ্রহের সময় ভূমিদস্যু কর্তৃক তিন সাংবাদিকের উপর হামলা ও ক্যামেরা ছিনতাইয়ের ঘটনায় ৪ আসামিকে আটক করেছে আখাউড়া থানা পুলিশ।

শনিবার (২৭ জুন) রাতে আখাউড়া থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলেন আখাউড়ার মোগড়া ইউনিয়নের মোগড়া গ্রামের ভূমিদস্যু বাকের খন্দকার(৪০),আব্দুল কাদের (৩৫),আবুল কাশেম(৩০)ও জবিউল্লাহ(২০)।

পলাতক আসামীরা হলেন একই গ্রামের আবু সায়েদ(৫৫),সুমন মিয়া(৩২),গোলাম মোস্তফা(৫০),নাঈম(১৮)ও রহিমা খাতুন(২৪)।

উল্লেখ্য গত ২১ শে মার্চ মোগড়া ইউনিয়নের মোগড়া গ্রামের মৃত আব্দুল ওহাব এর ছেলে শফিকুর রহমান(৫৫) এর বাড়িতে দেয়াল নির্মাণ করার সময় হামলা ও ভাঙচুর করে স্থানীয় ভূমিদস্যুরা। উক্ত ঘটনার খবর পেয়ে সংবাদ সংগ্রহ করতে ছুটে যায় এশিয়ান টেলিভিশনের আখাউড়া প্রতিনিধি মোঃ অমিত হাসান আবির, দৈনিক ডোনেট বাংলাদেশের আখাউড়া প্রতিনিধি মোঃজুয়েল মিয়া এবং দৈনিক আমাদের বাংলার আখাউড়া প্রতিনিধি মোঃ ইসমাইল হোসেন।

সংবাদ সংগ্রহের সময় স্থানীয় ভূমিদস্যুরা ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের ওপর ও হামলা চালায়।হামলার সময় ভূমিদস্যুরা সাংবাদিক আবিরের ক্যামেরা ও তাদের পকেটে থাকা নগদ টাকাসহ মানিব্যাগ জোরপূর্বক ছিনিয়ে নিয়ে যায়।হামলায় গুরুতর আহত সাংবাদিকদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে।পরবর্তীতে খবর পেয়ে আখাউড়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ক্যামেরাটি উদ্ধার করে।

উক্ত ঘটনায় সাংবাদিক অমিত হাসান আবির বাদী হয়ে আখাউড়া থানায় মামলা দায়ের করেন। স্থানীয় প্রভাবশালী ও ভূমিদস্যু কর্তৃক মারধরের শিকার ভুক্তভোগী শফিকুর রহমান বলেন,হামলাকারীরা দাঙ্গাবাজ,উশৃংখল, ভূমিদস্যু ও মাদক ব্যবসায়ী।তারা দীর্ঘদিন যাবৎ ক্ষমতার অপব্যবহার করে আসছে।কাগজে পত্রে আমি জমির বৈধ মালিক হওয়া সত্ত্বেও আমার বসত বাড়ির জায়গা অবৈধভাবে দখল করিয়া রাখিয়াছে।

তাদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে আমি আমার জায়গায় দেয়াল নির্মাণ করতে গেলে তারা আমার পরিবারের সবার উপর হামলা করে দেয়াল নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়।এ সময় তারা আমার বসত ঘরের দরজা,জানালা, বেড়া, বিভিন্ন গাছপালা ইত্যাদি কুপাইয়া ভাঙচুর করিয়া আনুমানিক ৪০ হাজার টাকার ক্ষতি সাধন করে।

আমাদের প্রকাশ্যে হত্যার হুমকি দেয়।উক্ত ঘটনা তদন্তের জন্য আমি আখাউড়া থানা পুলিশ ও সাংবাদিকদের জানায়।খবর পেয়ে সাংবাদিকরা আসার সাথে সাথে তাদের উপর ও নৃশংস হামলা চালিয়েছে তারা।পরবর্তীতে পুলিশ এসে হামলাকারীদের না পেয়ে ক্যামেরাটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়।এ ঘটনায় উপযুক্ত তদন্ত সাপেক্ষে আমি স্থানীয় সংসদ সদস্য ও আইনমন্ত্রী আনিসুল হকসহ প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠু বিচার প্রার্থনা করছি।

স্থানীয়রা বলেন,শফিকুর রহমান নীরিহ প্রকৃতির লোক।স্থানীয় প্রভাবশালী ভূমিদস্যু আবু সায়েদ ও সুমন মিয়া তাদের দলবল নিয়ে শফিকুর রহমান ও তার পরিবারের উপর দীর্ঘদিন যাবৎ জায়গা দখলসহ অন্যায়ভাবে অত্যাচার করে আসছে।

এ বিষয়ে আখাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ রসুল আহমেদ নিজামী বলেন,সাংবাদিকদের উপর হামলার ঘটনায় ৪ জন আসামীকে গ্রেফতার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।