ঢাকা, আজ মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০

কুমিল্লায় বৃদ্ধকে রিকশার চেইন নিয়ে পেটানোর ভিডিও ভাইরাল

প্রকাশ: ২০২০-০৬-০৯ ১২:৩৫:৪৬ || আপডেট: ২০২০-০৬-০৯ ১২:৩৫:৪৬

মাসুদ আলমঃ

কুমিল্লার মনোহরগঞ্জে দুই ভাই মিলে সড়কের উপর রিকশার চেইন দিয়ে বৃদ্ধকে নির্মমভাবে পেটানোর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পড়েছে। মারধরের শিকার বৃদ্ধ নূরুল আমিন (৭০) মনোহরগঞ্জ উপজেলার বাইশগাঁও ইউনিয়নের ফুলপুকুরিয়া গ্রামে বাসিন্দা। সম্পত্তির বিরোধ নিয়ে আপন দুই ভাতিজা মাঈন উদ্দিন ও মনির হোসেন ওই বৃদ্ধকে পিটিয়েছেন।

অভিযুক্ত মাঈন ও মনির ওই একই গ্রামের বাসিন্দা খোরশেদ আলমের ছেলে। মারধরের ঘটনাটি ঘটেছে ফুলপুকুরিয়া গ্রামের মান্দারগাঁও বাজারের পাশে মনোহরগঞ্জ উপজেলা সড়কের উপর। পেটানোর অভিযোগে বৃদ্ধ নূরুল আমিন মনোহরগঞ্জ থানায় দুই অভিযুক্তসহ চারজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন।

ঘটনার তদন্তের স্বার্থে মারধরের ভিডিও ধারণ এবং ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে রাসেল নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মনোহরগঞ্জ থানার তদন্ত পরিদর্শক মাহবুবুল কবির জানান, গত ২ জুন সম্পত্তির বিরোধে সড়কের উপর এক বৃদ্ধকে মারধরের ভিডিও ধারণ এবং ঘটনার সাথে সম্পৃক্ততা থাকায় রাসেল নামে ওই ব্যক্তিকে আটক করা হয়। পরবর্তীতে দেখা গেল আটক ব্যক্তির বিরুদ্ধে পূর্বে চুরির মামলা রয়েছে। ওই মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে জেল হাজতে পাঠানো হয়।

স্থানীয় বাসিন্দাদের সূত্র জানা যায়, মারধরের শিকার বৃদ্ধ নূরুল আমিন ও তার ভাই খোরশেদ আলমের সাথে দীর্ঘদিন ধরে সম্পত্তির দ্বন্ধ রয়েছে। পুকুরের পানি সেচ এবং মাছ নিয়ে নতুন দ্বন্ধের জেরে বৃদ্ধকে একা পেয়ে সড়কের উপর রিকশার চেইন দিয়ে নির্মমভাবে পিটিয়ে আহত করে খোরশেদ আলমের দুই ছেলে মাঈন ও মনির। মারধরের ভিডিও ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছেড়ে দেওয়ার পর মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে হয়ে পড়ে। অভিযুক্তদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে প্রতিবাদ করেন স্থানী বাসিন্দারা।

মনোহরগঞ্জ থানার ওসি মেসবাহ উদ্দিন ভূঁইয়া জানান, অভিযুক্ত মাঈন ও মনির এবং তাদের বাবা খোরশেদ আলমসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে মারধরের শিকার বৃদ্ধ নূরুল আমিন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আসামীদের পায়নি। তারা পালাতক রয়েছে। বৃদ্ধকে মারধরের ঘটনার সাথে জড়িত সবাইকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশ মাঠে রয়েছে। শীঘ্রই তাদেরকে আইনে আওতায় আনা হবে।