ঢাকা, আজ সোমবার, ১৯ অক্টোবর ২০২০

কুমিল্লায় মেস ভাড়া মওকুফ করে শিক্ষার্থীদের সাহায্যের ঘোষণা দিলেন মেস মালিক

প্রকাশ: ২০২০-০৬-০৬ ০০:৩৪:৪৩ || আপডেট: ২০২০-০৬-০৬ ০০:৩৪:৪৩

আবু সুফিয়ান রাসেলঃ

কুমিল্লা শহরতলীর ধর্মপুরে মেস ভাড়া মওকুফ করেছেন একজন মেস মালিক। একই সাথে তিনি আরও দুটি বাসার ভাড়া মওকুফ করার ঘোষণা দিয়েছেন। শিক্ষার্থীরা অার্থিক সমস্যা থাকে, তাকে জানালানে ব্যক্তিগত ভাবে সাহযোগীতার কথা জানিয়েছেন।

সূত্র জানায়, ধর্মপুর লন্ডনী হাউজ নামের এ মেসের মালিক দুই মাসের ভাড়া মওকুফ করেছেন। ধর্মপুর এলাকায় ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা ভাড়া বাসায় থেকে পড়া লেখা করে। ধর্মপুর, শাসনগাছা, কান্দিরপাড়, দৌলতপুর, টমচমব্রীজ ও চর্থা এলাকায় ভিক্টোরিয়া কলেজের প্রায় ১৫ হাজার শিক্ষার্থী ভাড়া বাসায় থাকেন। এ শহরে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, ভিক্টোরিয়া কলেজ, সরকারি কলেজ, মহিলা কলেজ, সরকারি সিটি কলেজ, অজিতগুহ কলেজসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পড়ুয়া ও চাকরি প্রার্থী প্রায় ৯০ হাজার শিক্ষার্থী ভাড়া মেসে থাকেন।

এ মেসের বাসিন্দা আ. হান্নান ফেসবুকে লিখেছেন, আমাদের মালিক কোনদিন ভাড়ার জন্য চাপ দেননি। ভাড়া মওকুফ করে বলে গেছেন, কারও কোন ব্যক্তিগত গত সমস্যা থাকলে ওনার সাথে যোগাযোগ করতে। এছাড়াও তিনি আরও দুইটি বাসা ভাড়া মওকুফ করেছেন। মাহবুব ভাই খুবই ভালো মনের মানুষ।

লন্ডনী হাউজের মালিক মো. মাহবুব আলমগীর বলেন, করোনার প্রাদুর্ভাবে বিশ্ব এখন আতঙ্কে ও সংকটে আছে। মানুষের আয় রোজকার বন্ধ প্রায়। ছাত্ররা টিউশন করে মেস ভাড়া দেয়, তাদের এখন টিউশন বন্ধ। তাই দুই মাসের ভাড়া মওকুফ করেছি। কারও কোনো সমস্যা থাকলে আমাকে যেন জানানো হয়। সমস্যা সমাধানে সাধ্যমত চেষ্টা করবো। এ সংকটে সকল বাড়িওয়ালাদের ভাড়াটিয়াদের সাথে সমন্বয় করা উচিত। আমি অনুরোধ করবো, আপনারা ৫০% ভাড়া মওকুফ করুন। আপনারা আমার মা-বাবার জন্য দোয়া করবেন।

ভিক্টোরিয়া কলেজ শিক্ষার্থীদের দ্বি-মাসিক মুখপাত্র ক্যাম্পাস বার্তা সম্পাদক মাহদী হাসান জানান, লন্ডনী হাউজের মালিক মাহবুব আলমগীর সাহেবকে ধন্যবাদ। তিনি বাসা মালিকদের মধ্যে উদাহরণ হয়ে থাকবেন। সকল বাসা মালিকদের জন্য অনুকরণীয়। সকল বাড়িওয়ালাদের অনুরোধ করবো, শিক্ষার্থীদের ৫০-৬০% ভাড়া মওকুফ করার জন্য। ভাড়া মওকুফের ক্যাম্পাস বার্তার পক্ষ থেকে গত ১৭ মে অধ্যক্ষ স্যার বরাবর দরখাস্ত দিয়েছি। আমাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কলেজের পক্ষে অধ্যক্ষ স্যার জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত আবেদন করেছেন। বাসা মালিক ও শিক্ষার্থী উভয়ে বিষয়টি সমন্বয় করা দরকার।

প্রসঙ্গত, গত দুই জুন মেস ভাড়ার টাকার জন্য কুমিল্লার ধর্মপুরে ছয় ছাত্রীকে আটকে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ৯৯৯ নম্বরে কলের পর পুলিশ ছাত্রীদের উদ্ধার করে। গত ১৮ মার্চ থেকে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের ঘোষণার পর ছাত্র-ছাত্রীরা স্থায়ী ঠিকানায় অবস্থান করছেন।