ঢাকা, আজ বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১

লাকসাম ভাতিজার চুরির আঘাতে চাচাসহ ৫ জন আহত

প্রকাশ: ২০২১-০৬-০৪ ০৫:০৭:৪৮ || আপডেট: ২০২১-০৬-০৪ ০৫:০৭:৪৮

লাকসাম (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লা লাকসামে বসত বাড়ীর বিরোধে জের ধরে চাচা ভাতিজার সংঘর্ষে শিশুসহ উভয় পক্ষের ৫ জন আহত হয়েছে।
গত(২ জুন) বুধবার দুপুরে গোবিন্দপুর ইউনিয়নে সাতঘর ইছাপুর গ্রামে করিম কেরানির বাড়ীতে হামলা ঘটনা ঘটেছে।
ভাতিজা বাবলু(২৬)এর চুরির আঘাতে চাচা নুর আহম্মদের(৭০) গুরুতর আহতসহ অন্য ব্যক্তিদেরকে সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
এ ঘটনায় উভয় পক্ষের স্বজনরা লাকসাম থানয় অভিযোগ করেন। অভিযোগ পেয়ে থানার পুলিশের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্ত করেন।

অভিযোগ ও স্থানীয় সুত্রে জানাযায়, উপজেলার গোবিন্দপুর ইউনিয়ন সাতঘর ইছাপুর গ্রামের নুর আহম্মদের(৭০) ছেলে আবদুল হালিম ও সেলিম মিয়ার সাথে প্রবাসী আবু তাহের ছেলে বাবলু ও মেহেদী হাসানের সঙ্গে সম্পত্তি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। গত ২ জুন বুধবার নুর আহম্মদের ছেলে আবদুল হালিম ও সেলিম তাদের পৈতৃক ভিটায় ঘর নির্মাণ করার জন্য সীমানা নির্ধারন করেন। যাতায়াতের সীমানা না রেখে এ সময় প্রবাসী আবু তাহের ছেলে বাবলু ও মেহেদী ঘর নির্মাণে বাধা দেয়। এ ঘটনা নিয়ে দুপুরে দিকে দুই পরিবারের মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়।

একপর্যায়ে প্রবাসী আবু তাহের ছেলে বাবলু (২৮) ও মেহেদী হাসান (২১) চাকু দিয়ে চাচা নুর আহম্মদ (৭০)হাতে ও সেলিম মিয়ার ছেলে মোস্তাফিজ (১৪) পেটে আঘাত করেন এতে গুরুতর আহত হন তারা। তাদের আত্ম চিৎকারে ও রক্তাক্ত অবস্থায় দেখে স্বজনরা এগিয়ে আসলে তাদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। এতে আবদুল হালিমের ছেলে মেহারাজ(৫) ও মেয়ে সুমাইয়া(১৩) সহ অন্তত ৫ জন আহত হয়েছে। স্বজনরা আহত ব্যক্তিদেরকে লাকসাম হাসপাতালে ভর্তি করেন।

বুধবার রাতে এ ব্যাপারে লাকসাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মেজবাহ উদ্দিন ভুইয়া মুঠোফোনে বলেন, দুই পক্ষের লোকজন অভিযোগ করেছেন তদন্ত করে ব্যবস্তা নেওয়া হবে।