ঢাকা, আজ শনিবার, ১৯ জুন ২০২১

কুবির ১৬ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

প্রকাশ: ২০২১-০৫-৩১ ০৮:৪৮:৪১ || আপডেট: ২০২১-০৫-৩১ ০৮:৪৮:৪১

কুবি প্রতিনিধিঃ

নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) ১৬ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

সোমবার (৩১ মে) সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরীর নেতৃত্বে প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আনন্দ র‍্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‍্যালিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পুণরায় প্রশাসনিক ভবনের সামনে এসে শেষ হয়। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভার্চুয়াল ক্লাস রুমে কেক কেটে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করা হয়।

পরে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরীর বলেন, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় আগামীতে আরো বড় পরিসরে বিশ্ববিদ্যালয় দিবস পালন করতে পারবে। আমরা যে ১৬ শ’ ৫৫ কোটি টাকার প্রক্ল্প হাতে পেয়েছি তা আজ স্বপ্ন নয় বাস্তব। আমি স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছি এই প্রকল্প বাস্তবায়ন হবে। আমরা শিঘ্রই একটি চমৎকার পরিবেশ পাচ্ছি। কিন্তু এই চমৎকার পরিবেশ নষ্ট হতে বেশী সময় লাগবেনা। পরিবেশ যাতে নষ্ট না হয় এবং প্রকল্প বাস্তবায়নে যাতে কোন বাধা না আসে সেজন্য আমাদের সবাইকে একত্রে কাজ করতে হবে। আমাদের দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হল মধ্যবিত্ত। এখানে শিক্ষার্থীরা ১২-১৪টাকা দিয়ে পড়াশুনা করে। কিন্তু আমরা সরকারী অর্থ অপচয় করতে পারিনা। অপচয় করা একটা অপরাধ।

তিনি আরো বলেন, আমাদের মধ্যে মতপার্থক্য থাকতে পারে। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের ভবিষ্যতের জন্য সবাইকে একতাবদ্ধ হতে হবে। নিজেদের মধ্যে প্রতিযোগিতা থাকবে তবে সেটা হবে পজেটিভ প্রতিযোগিতা। আর পজেটিভ থাকলে সবকিছু জয় করা সম্ভব হয়। আমরা সবাই একতাবদ্ধ হয়ে আমাদের যে অভাব রয়েছে তা আমরা সেটা পূরণ করতে পারবে।

ট্রেজারার অধ্যাপক ড. মো. আসাদুজ্জামান বলেন, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের আলোয় আলোকিত হলো কুমিল্লাবাসী। বিশ্ববিদ্যালয়ের সদস্যদের পাশাপাশি কুমিল্লাবাসী যখন এই বিশ্ববিদ্যালয় কে ধারণ করবে তখন এটি বিশ্ব দরবারে জায়গা করে নিবে। ২৫০ একরের ক্যাম্পাস থেকে যারা গ্র্যাজুয়েট হবে তারা যাতে মানবজাতির কল্যাণে কাজ করে। এইজন্য আমাদের সকলকে একত্রিত হয়ে কাজ করতে হবে।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের, শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. শামিমুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ও প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন,যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. মোকাদ্দেস-উল-ইসলাম,
বিভিন্ন অনুষদের ডিন, হল প্রভোস্ট, বিভাগীয় প্রধান, শাখা ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।