ঢাকা, আজ শনিবার, ১৯ জুন ২০২১

নাঙ্গলকোটে ভাতিজাদের হামলায় চাচা’সহ আহত-৪

প্রকাশ: ২০২১-০৫-৩০ ১০:৫১:১৯ || আপডেট: ২০২১-০৫-৩০ ১০:৫১:১৯

নাঙ্গলকোট প্রতিনিধিঃ
কুমিল্লার নাঙ্গলকোটের দৌলখাঁড় ইউনিয়নের কেকৈয়া গ্রামে সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের জেরে সন্ত্রাসী হামলায় একই পরিবারের ৪ জন গুরুতর আহত হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন কেকৈয়া গ্রামের বাহার উদ্দিন (৫০), তার স্ত্রী হাজেরা আক্তার পান্না (৪৫), ছেলে পারভেজ (২৬) ও মেয়ে তারমিন সুলতানা বৃষ্টি (১৬)। আহতদের নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কেকৈয়া গ্রামের মৃত তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে বাহার উদ্দিনের বাড়ীর চার পাশে তার ভাই সাবেক কৃষি ব্যাংক কর্মকর্তা আবুল হোসেন ঘর ও সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করে বন্দি করে পেলে এবং পৈত্রিক সম্পত্তিতে বাহার উদ্দিনকে কম মূল্যের জমি গুলোতে ভাগ দিয়ে মূল্যবান সম্পত্তি গুলো তার ভাই দখল করে। এছাড়াও বাহার উদ্দিনকে দখলীয় সম্পত্তিতে আবুল হোসেন জোর পূর্বক ঘর নির্মাণ করে পেলে। সবশেষে গত শনিবার বাহার উদ্দিন তার মালিকানাধীন জমি থেকে মাটি কাটতে গেলে আবুল হোসেন তার ২ছেলে ও ভাতিজাকে নিয়ে বাধা দেয়।

এ নিয়ে বাহার উদ্দিন ও তার পরিবারের সদস্যরা প্রতিবাদ করলে আবুল হোসেনের নির্দেশে তার ছেলে রুবেল ও পলাশ, অপর ভাই জালাল আহম্মেদের ছেলে জাহিদ বিন জনি তার উপর ধারালো ও দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে।
আহত বাহার উদ্দিন বলেন, আমার ভাই আবুল হোসেন বিভিন্ন ভাবে আমার পরিবারের উপর নির্যাতন চালিয়ে আসছে এবং আমার জমি দখল করে ঘর নির্মাণ করেছে। আমি কোন বিষয়ে প্রতিবাদ করলেই তারা আমাদের উপর হামলা চালায়। আমি এ ব্যাপারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান ভূক্তভোগীরা।

হামলার ঘটনায় অভিযুক্ত রুবেল বলেন, বাহার উদ্দিনের কোন সম্পত্তি নেই। হাসপাতাল যাওয়ার সময় আমি বাড়ীতে থাকলে তারা হাসপাতালেও যেতে পারতো না, তাদেরকে বেঁধে রাখতাম।