ঢাকা, আজ শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১

ব্রাহ্মণপাড়ায় কিশোরীকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করার অভিযোগ

প্রকাশ: ২০২১-০৫-২৯ ১৭:৩০:৪৪ || আপডেট: ২০২১-০৫-২৯ ১৭:৩০:৪৪

মোঃ সোহেল ইসলাম, ব্রাহ্মণপাড়া প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এক কিশোরীকে গাছের সঙ্গে বেঁধে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গুরুতর অবস্থায় নির্যাতনের শিকার শামীমা আক্তারকে পুলিশ উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এ ঘটনায় ১০ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেছে নির্যাতিত কিশোরী শামীমা আক্তার । আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

গত ১৯ মে কুমিল্লা জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা সদর ইউনিয়নের পশ্চিমপাড়া এলাকায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কিশোরী শামীমাকে গাছের সঙ্গে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করে হোসেন মিয়া ও তার পরিবারের সদস্যরা। কিশোরীকে একটি গাছের সাথে বেধে রাখা হয়েছে এমন সংবাদে ব্রাহ্মণপাড়া থানা পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে কিশোরীকে উদ্ধার করে ব্রাহ্মণপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে ভর্তি করে।

নির্যাতনের শিকার শামীমা বলেন, হোসেনের বাড়ীতে আগুন লাগে। তখন আশপাশের চিৎকারের আওয়াজে আমি দৌড়ে বাড়িতে ছুটে যাই। আমি এবং স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। পরে আমি বাড়ি আসার পথে আমাকে আগুন লাগানোর অপবাদে হাত-পা বেঁধে ফেলে। আমাকে তারা অনেক মারধর ও নির্যাতন করে। মারধরের সময় অজ্ঞান হয়ে যাই। পরবর্তীতে কি হয়েছে তা আমি বলতে পারছিনা।

শামীমার মা বলেন, আমার মেয়েকে যারা নির্যাতন করেছে। আমি তাদের নির্যাতনের বিচার চাই। এ ঘটনায় শামীমা আক্তার বাদী হয়ে ১০ জনকে আসামি করে থানায় একটি মামলা করেন। আসামীরা হলেন উপজেলা সদর এলাকার হোসেনের ছেলে মোঃ পারভেজ (৩৮), মৃত ইউছুফ আলীর ছেলে মোঃ হোসেন(৫৫), হোসেন মিয়ার ছেলে পিয়ার আহাম্মদ(২০), হোসেন মিয়ার স্ত্রী পারুল আক্তার(৪৫), হোসের মিয়ার মেয়ে মনি আক্তার(৩০), সৃতি আক্তার, ইউছুফ আলীর মেয়ে সাবিনা আক্তার(৩৫), কাশেম (৪৫), আমির হোসেন(৪০), হামিদ আলীর ছেলে তুহিন(৩৫)।