ঢাকা, আজ শনিবার, ১৯ জুন ২০২১

আশুলিয়ায় তিন বন্ধু মিলে আল-আমিন নামের এক বন্ধুকে খুন করে

প্রকাশ: ২০২১-০৫-২৭ ১৭:৪৩:৪৩ || আপডেট: ২০২১-০৫-২৭ ১৭:৪৩:৪৩

সাভার উপজেলা প্রতিনিধিঃ

আশুলিয়ায় চাকরি দেওয়ার কথা বলে বন্ধুর থেকে টাকা নিয়ে চাকরি না দেওয়া ও সেই টাকা ফেরত না দেওয়ায় বন্ধুকে অপমান। অতঃপর ক্ষোভে তিন বন্ধু মিলে আল-আমিন (২০) নামের এক জনকে খুন করে ।
এঘটনায় তিন বন্ধুকে গ্রেফতার করেছে আশুলিয়া থানা পুলিশ।

পুলিশ জানায়, গত ২৩ মে রাতে আশুলিয়ার কাঠগড়া এলাকায় শামসুন্নাহারের বাড়ি থেকে এক অজ্ঞাত যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে আশুলিয়া থানায় একটি মামলা হলে বিভিন্ন সূত্রের মাধ্যমে নিহতের সাথে থাকা তার বন্ধুদের গ্রেফতার করা হলে নিহতের নাম পরিচয় পাওয়া যায় এবং এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা উদঘাটন হয়।

বৃহস্পতিবার (২৭ মে) দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়। এরআগে বুধবার (২৬ মে) রাতে গাজীপুরের কোনাবাড়ি থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়৷
নিহত আল-আমিন পাবনা জেলা বেড়া থানার মঞ্জু মিয়ার ছেলে৷
গ্রেফতাররা হলো- পাবনা জেলার সাথীয়া থানার ধুলাউড়ি গ্রামের মাহাতাব ব্যপারির ছেলে সোহেল (২২), আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে আব্দুল আলীম (১৭) ও খালেকের ছেলে জিহাদ (১৮)।
নিহত ও হত্যাকারিরা আশুলিয়ার কাঠগড়া এলাকায় শামসুন্নাহারের বাড়ি ভাড়া নিয়ে থাকতো। তারা একে অপরের বন্ধু।

পুলিশ আরও জানায়, গ্রেফতার আসামিদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে আল-আমিনরা চার বন্ধু ও একই এলাকার বাসিন্দা। সোহেল নামের বন্ধু নিহত আল-আমিনের কাছে চাকরি নেওয়ার কথা বলে ৯০ হাজার টাকা নেয়। সেই চাকরি না দিতে পারায় আল-আমিন টাকা ফেরত চায় এবং সোহেল কে অপমান করে। সেই ক্ষোভে সোহেলসহ বাকি তিন বন্ধু মিলে আল আমিন কে হত্যা করে ঘর বন্ধ করে পালিয়ে যায়।

এ বিষয়ে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক ফজর আলী বলেন, মুলত টাকার জন্য বন্ধুকে খুন করে তার মোবাইল ফোন নিয়ে পালিয়ে যায়। তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে সেই মোবাইলের অবস্থান জেনে তাদের গ্রেফতার করা হয়।