ঢাকা, আজ রোববার, ২০ জুন ২০২১

“ব্রাহ্মণপাড়া সদরের সারে ৪ কিলোমিটার রাস্তার বেহাল দশা”

প্রকাশ: ২০২১-০৫-২২ ১৭:৩৩:১৭ || আপডেট: ২০২১-০৫-২২ ১৭:৩৩:৫০

মোঃ সোহেল ইসলাম, ব্রাহ্মণপাড়া প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লা জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা সদরের একটি রাস্তার বেহাল দশার কারণে প্রায় কয়েক হাজার মানুষের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। প্রায় কয়েক বছর যাবৎ এ যুগেও ইটের সলিং রাস্তাটির সংস্কার না হওয়ায় যানবাহন ও মানুষের চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। উপজেলা সদরের টিএন্ডটি অফিস সংলগ্ন ব্রাহ্মণপাড়া অদুদ চেয়ারম্যান সড়ক রাস্তাটির প্রায় ৪.৫ কি.মি রাস্তাটি এখন মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, উপজেলা সদরের অদুদ চেয়ারম্যান সড়ক থেকে প্রায় ৪.৫ কি.মি রাস্তার বেহাল দশা। কয়েক বছর আগে ইট উঠে গিয়ে রাস্তার অনেকাংশে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। অটোরিক্সা, মোটরসাইকেল, ভ্যানসহ যেকোণ যানবাহন চলাচলে রাস্তাটি বিপদজনক হয়ে উঠেছে। সামান্য বৃষ্টি হলে রাস্তার অবস্থা আরো ভয়ঙ্কর হয়ে উঠে। রাস্তার প্রায় বেশিরভাগ অংশ কাঁচা হওয়ায় অবস্থা আরো খারাপ। ইতিমধ্যে রাস্তা ভেঙেচুরে বেহাল হয়ে পড়েছে। এ সময় লক্ষ্য করলে দেখা যায়, রাস্তার অবস্থা এতটাই খারাপ একটি মোটরসাইকেল চালিয়ে যাওয়ার সময় অনেক বেগ পেতে হয়। পুরো রাস্তায় রয়েছে ২টি ব্রীজ।

ব্রীজের বেশিরভাগ পাশের রাস্তার ইট ও মাটি সরে গিয়ে পথচারী ও যানবাহন উঠানামা অনেক কষ্ট হয়ে পড়ে। এতে করে প্রায় সময় পথচারী ও যানবাহন দূর্ঘটনার স্বীকার হয়। উপজেলার কল্পবাস, ডগ্রাপাড়া, মহালক্ষীপাড়া, ধান্যদৌল, নোয়াপাড়াসহ বেশ কয়েকটি গ্রামের প্রায় কয়েক হাজার মানুষের চলাচলের সহজ সড়ক হিসাবে পরিচিত এই সড়কের বেহাল দশার কারণে অনেক দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এছাড়া এই সড়কে একটি স্কুল, একটি মাদ্রাসা, ব্যাংক, এনজিও, ব্র্যাক স্কুলসহ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। স্কুলে আসার পথে শিক্ষার্থীদের অনেক কষ্ট পোহাতে হয়। এ রাস্তায় প্রতিদিন চলাচলকারী পথচারী স্বপন ভূইঁয়া বলেন, এখানকার মানুষ প্রয়োজনে কোথাও গেলে রাস্তা দিয়ে হেঁটে যানবাহনে উঠতে হয়। কোন অসুস্থ রোগীকে জরুরী প্রয়োজনে হাসপাতালে আনতে গেলে রাস্তার খারাপ অবস্থার কারণে অনেক দেরী হয়ে যায়।

এতে করে রোগীকে সঠিক সময়ে হাসপাতালে না নেওয়ার কারণে অবস্থা খারাপ হয়। স্থানীয় ব্যবসায়ী আবদুল কাইয়ুম বলেন, রাস্তার বেহাল দশার কারণে নিজ গ্রামে মালামাল আনার জন্য অটোরিক্সাসহ কোন প্রকার যানবাহন আসতে চায় না। যদিও যেসব যানবাহন আসতে চায় তাদেরকে অনেক বেশি টাকা দিয়ে আনতে হয়। এতে করে ব্যবসায়ে লাভের অংশ চলে যায়। স্থানীয় বাসিন্দা সিদ্দিকুর রহমান বলেন, কয়েক বছর আগে এই রাস্তায় ইট বসানো ছিল। রাস্তার ইট উঠে এখন খানাখন্দে ভরে গেছে। অনেকাংশে রাস্তার ইটের কোনও অস্তিত্ব নেই সব বিলীণ হয়ে গেছে। এই কারণে দ্রুত রোগীকে হাসপাতালে নিতে চরম ভোগান্তিতে পরতে হয়। রাস্তা খারাপের কারণে কোন গাড়ি পাওয়া যায় না।

এতে করে এই রাস্তায় চলাচলকারী পথচারী ও যানবাহনগুলোকে চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়। রাস্তাটি ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার সদরের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। হাজার হাজার লোকের চলাচলের এই রাস্তাটি দ্রুত সংস্কার করতে এলাকাবাসী প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামণা করেছেন। এতে করে স্থানীয় ও চলাচলকারী সকলের জন্য অনেক উপকার হবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন এলাকাবাসী।