ঢাকা, আজ বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১

কৃষকের ধান কাটছে আশুলিয়া থানা যুবলীগ, হাসি মুখ কৃষকের

প্রকাশ: ২০২১-০৪-২৭ ০৯:০৫:০৭ || আপডেট: ২০২১-০৪-২৭ ০৯:০৫:০৭

সাভার প্রতিনিধিঃ

সারা বিশ্ব যখন করোনার সংকটের দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে আছেন। ঠিক সময় সরকারের বেঁধে দেওয়া লকডাউনে পরে গেছেন অর্থসংকটে বিপাকে পড়েছেন কৃষক আয়নাল গায়েন। তিন বিঘ জমির পাকা ধান কাটতে পারছিলেন না। আশুলিয়া থানা ধীন ইয়ারপুর ইউনিয়ন এর তাজপুর এলাকায় কৃষক আয়নাল গায়েন। তার পাকা ধান ক্ষেতেই নষ্ট হতে যাচ্ছিল খবর পেয়ে আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহবায়ক কবির হোসেন সরকার ও যুগ্ম আহবায়ক মইনুল ইসলাম ভূইয়ার নির্দেশে, ইয়ারপুর ইউনিয়নের পরিশ্রমই ও মেধাবী যুবলীগের সভাপতি মো: নুরুল আমিন সরকারের নেতৃত্ব সকল ইউনিটের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে ধান কাটার ধুম পড়ে।

স্থানীয় লোকজন জানান, আশুলিয়া থানা যুবলীগের উদ্যোগে যুবলীগের নেতৃবৃন্দ সকাল থেকে কৃষক আয়নাল গায়েনের তিন বিঘা জমির ধান কেটে বাড়িতে তুলে দেন। যুবলীগের নেতাকর্মীদের এ ধরনের উদ্যোগকে স্বাগত জানান এলাকার লোকজন। তারা প্রশংসা করেন আশুলিয়া থানা যুবলীগের নেতাকর্মীদের।

কৃষক আয়নাল গায়েন জানান, লকডাউনের মধ্যে ধান কাটার উপযুক্ত সময় হওয়া সত্ত্বেও অর্থ ও শ্রমিক সংকটের কারণে পাকা ধান কাটতে পারছিলাম না। এ ছাড়া এলাকায় যে শ্রমিক পাওয়া যায়, তাদের মজুরি অনেক বেশি। ফলে ক্ষেতে ধান পাকার পরও তা কাটতে না পারায় কিছুটা ক্ষতির শঙ্কায় ছিলাম। আমার এমন অসহায়ত্বের কথা শুনে আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক কবির হোসেন সরকার ও মইনুল ইসলাম ভূঁইয়া ও নুরুল আমিন সরকার ও
নেতাকর্মীকে সঙ্গে নিয়ে এসে টাকা-পয়সা ছাড়াই আমার তিন বিঘা ক্ষেতের ধান কেটে দেন। আমি তাদের এ সাহায্যের কথা কখনো ভুলব না।

আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহবয়ক কবির হোসেন সরকার বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ও আমাদের প্রিয় নেতা যুবলীগের সম্মানিত চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল ভাইয়ের অনুপ্রেরণায় অসহায় ও দরিদ্র কৃষকদের ধান কেটে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেই। কৃষক আয়নাল গায়েন তিন বিঘা জমির পাকা ধান কাটতে না পেরে বিপাকে পড়েন। তাঁর অসহায়ত্বের কথা শুনে আশুলিয়া থানার অন্তর্গত পাঁচটি ইউনিয়নের যুবলীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে এ ধান কেটে দিয়েছি। এ সংকটকালে প্রয়োজনে খবর পেলে এমন আরও অসহায়দের ধান কেটে দেব আমরা যুবলীগের নেতাকর্মীরা।