ঢাকা, আজ রোববার, ২০ জুন ২০২১

চৌদ্দগ্রাম উপজেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ জয়িতা কুলছুমা আক্তার

প্রকাশ: ২০২০-১২-০৯ ১১:৪৭:২১ || আপডেট: ২০২০-১২-০৯ ১১:৪৭:২১

মোঃ শাহীন আলম, চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলায় সফল জননী নারী ক্যাটাগরীতে শ্রেষ্ঠ জয়িতা হলেন কুলছুমা আক্তার। তিনি উপজেলার ঘোলপাশা ইউনিয়নের ঘোরাঘোরা গ্রামের মরহুম ডাঃ আবদুল করিমের স্ত্রী। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের অধীনস্থ জয়িতা ফাউন্ডেশন তাঁকে এ সম্মাননা দেন।

এ উপলক্ষে বুধবার চৌদ্দগ্রাম উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর কর্তৃক আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুদ রানা। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রাশেদা আখতার, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের সহকারী একান্ত সচিব মোহাম্মদ ফয়সল বিন করিম, উপজেলা সমবায় অফিসার মিয়া মোঃ শহীদুল আলম, উপজেলা সহকারি শিক্ষা অফিসার মোশারফ হোসেন, সফল জয়িতা নারী কুলছুমা আক্তার, সহকারী নারী প্রশিক্ষক সৈয়দা তাইফা।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা বিথী রানী চক্রবর্তী। উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা নাছির উদ্দিন পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ আল আমিন সরকার, উপজেলা মাধ্যমিক অফিসার মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সৈয়দ মোঃ তৈয়ব হোসেন।

সফল জননী কুলছুমা আক্তার বলেন, ‘উপজেলায় সফল জননী হিসেবে নির্বাচিত হওয়ায় আমি অত্যন্ত আনন্দিত। এটি আসলে আমার জীবনের জন্য একটি বিশাল স্বীকৃতি। ১৯৮৬ সালে মাত্র ১৫ বছর বয়সে আমার বিয়ে হওয়ার পরে শ্বশুর বাড়িতে ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও পড়াশুনা হয়নি, কিন্তু আমি চেয়েছিলাম আমার স্বপ্ন যেন আমার সন্তানের মধ্য দিয়ে বাস্তবায়িত হয়। পরিবারের আর্থিক অভাব অনটনেও ৩ ছেলের পড়াশুনায় কখনো পিছপা হইনি। ২০০৯ সালে আমার স্বামী মারা যাওয়ার পর, আমার ভাইয়েরা সহ নিকট আত্মীয়-স্বজন ও কৃষি জমির আয় দিয়ে ওদের লেখাপড়া চালিয়ে যাই ও ৩ ছেলেকে স্নাতক পাশ করাই।

আমার বড় ছেলে বিসিএস দিয়ে প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তা হয়। বর্তমানে সে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রনালয়ের মাননীয় মন্ত্রীর এপিএস হিসেবে কর্মরত আছে। মেঝো ছেলে বাংলাদেশ পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর হিসেবে ঢাকা জেলায় কর্মরত। ছোট ছেলে চুয়েট থেকে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করে এখন বিজনেস করে ও নিজেই কোম্পানীর সিইও হিসেবে আছে’।

তিনি আরো বলেন, ‘চলার পথে অনেক বাধা এসেছে, কিন্তু আমি কখনো দমে যাইনি। চেষ্টা করেছি ছেলেদেরকে সফল জায়গায় নিয়ে যেতে। সবাই আমার ৩ ছেলের জন্য দোয়া করবেন, তারা যেন নিজের পেশা দিয়ে দেশের জনগণের সেবা করতে পারে।

উল্লেখ্য, কুলছুমা আক্তারের বাবার বাড়ি চৌদ্দগ্রাম উপজেলার মুন্সিরহাট ইউনিয়নের কনকপুর গ্রামে। তিনি মরহুম ডাঃ হোসেন আলীর মেয়ে ও আ’লীগ নেতা মরহুম মজিবুল হক মজুর বোন।